Home » পশ্চিমবঙ্গ » জি ডি বিড়লা : প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারি চাইল রাজ্য শিশু কমিশন

জি ডি বিড়লা : প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারি চাইল রাজ্য শিশু কমিশন

কলকাতা: জি ডি বিড়লা কাণ্ডে এবার প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারি চাইল রাজ্য শিশু অধিকার রক্ষা কমিশন । কমিশনের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী রবিবার জানিয়েছেন, পুলিস কমিশনার ও জয়েন্ট পুলিস কমিশনারের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে । প্রিন্সিপ্যালকে গ্রেফতারির দাবিতে তিনি পুলিস কমিশনারকে চিঠি দিচ্ছেন । ইতিমধ্যে, যাদবপুর থানায় প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারির দাবিতে অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতা শিশুর বাবাও ।
অনন্যা চক্রবর্তী বলেন, পস্কো আইন অনুযায়ী শুধুমাত্র অপরাধী নয়, যারা সেই অপরাধ লুকানোর চেষ্টা করে বা সেই অপরাধ সংঘটিত হতে সাহায্য করে, তারাও একইরকম অপরাধী । তাদেরও একই শাস্তি হয় । তাঁর সাফ কথা, জি ডি বিড়লা স্কুলের ক্ষেত্রেও প্রিন্সিপ্যাল একইরকম অপরাধী । তিনি বারবার অপরাধ লুকানোর চেষ্টা করেছেন । অপরাধীদের আড়াল করার চেষ্টাও করেছেন । আর সে কারণেই অবিলম্বে প্রিন্সিপ্যালকে গ্রেফতার করা উচিত বলে জানিয়েছেন রাজ্য শিশু অধিকার রক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন । একই সঙ্গে কর্তৃপক্ষ কীভাবে নোটিশ ঝুলিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য ‘স্কুল বন্ধ’ ঘোষণা করতে পারে, সেই প্রশ্নও তুলেছেন অনন্যা চক্রবর্তী ।
প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারির দাবিতে রবিবার সকাল থেকেই ফের উত্তাল হয়ে ওঠে জি ডি বিড়লা স্কুল চত্বর । প্রথমে স্কুলে জমায়েত করেন অভিভাবকরা । তারপর রানিকুঠি ও টালিগঞ্জে বিশাল মিছিল করেন তাঁরা । অবিলম্বে প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারির দাবিতে রাস্তায় বসে অবস্থান বিক্ষোভও করেন অভিভাবকরা । পুলিস বিক্ষোভ হঠাতে গেলে টালিগঞ্জ মোড়ে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকদের সঙ্গে পুলিসের বাগবিতণ্ডাও হয় । এরপরই কয়েকজন অভিভাবককে সঙ্গে নিয়ে যাদবপুর থানায় গিয়ে প্রিন্সিপ্যালকে গ্রেফতারির দাবিতে অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা শিশুর বাবা ।
অন্যদিকে, কলকাতা পুলিসের তরফে জানানো হয়েছে, জিডি বিড়লা স্কুলে ছাত্রীর যৌন নির্যাতনের ঘটনার তদন্তভার নিচ্ছে গোয়েন্দা বিভাগ । বৃহস্পতিবার রাতে অভিযোগ দায়েরের পর থেকে ঘটনার তদন্ত করছিল যাদবপুর থানা ।
রবিবার ছুটির দিন হলেও, সকাল থেকেই স্কুলে জড় হতে শুরু করেন অভিভাবকরা । স্কুলে এখনও কোনও সংগঠিত গার্জিয়ান ফোরাম নেই । কিন্তু স্কুলের শৌচালয়ের মধ্যে নার্সারির ছাত্রীর যৌন নির্যাতনের ঘটনা সামনে আসার পর, জি ডি বিড়লা স্কুলের অভিভাবকরা নিজেরাই স্বতঃস্ফূর্ত হয়ে তৈরি করেছেন গার্জিয়ান ফোরাম । অভিভাবকদের প্রত্যেকের বক্তব্য, এই ঘটনার বিচার না পাওয়া পর্যন্ত তাঁদের লড়াই চলবে । অবিলম্বে প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারির দাবিও জানিয়েছেন বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা ।
রবিবার সকালে প্রথমে স্কুলের সামনের জমায়েত থেকে ফের প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারির দাবি জানান নির্যাতিতা শিশুর বাবা । এরপরই অভিভাবকবৃন্দ পথে নেমে বিক্ষোভের সিদ্ধান্ত নেয় । রানিকুঠিতে শুরু হয় অভিভাবকদের বিশাল মিছিল । রাস্তায় বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন অভিভাবকরা । টালিগঞ্জ মোড়েও হয় বিক্ষোভ অবস্থান । বিক্ষোভের জেরে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় টালিগঞ্জ-গড়িয়া রুটে । ঘুরিয়ে দেওয়া হয় ওই রুটের সব গাড়ি । তবে পথে নামা অভিভাবকরা এই বিক্ষোভকে ‘অবরোধ’ বলতে নারাজ । তাঁরা জানিয়েছেন, নিজেদের সন্তানদের নিরাপত্তা চেয়ে বিচারের দাবিতে তাঁদের এই ‘অবস্থান বিক্ষোভ’ ।
বিচার না পাওয়া পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে তাঁদের এই প্রতিবাদ কর্মসূচি চলবে বলে জানিয়েছেন অভিভাবকরা । একইসঙ্গে অভিভাবকরা স্পষ্ট জানিয়েছেন, এই প্রতিবাদ-বিক্ষোভে কোনও রাজনৈতিক দলের যোগ নেই । এই প্রতিবাদ একান্তভাবেই তাঁদের নিজেদের । যার প্রমাণ হিসেবে প্রত্যেক অভিভাবক গলায় ঝুলিয়ে নিয়েছেন তাদের সন্তানদের স্কুলের পরিচয়পত্রও ।
বিক্ষোভ মিছিলে হাঁটতে হাঁটতেই নির্যাতিতা শিশুর বাবা জানান, আজকের মধ্যে প্রিন্সিপ্যালকে গ্রেফতার করা না হলে আগামীদিনে তাঁরা থানাতেও যাবেন । একইসঙ্গে শুধু প্রিন্সিপ্যালের গ্রেফতারি নয়, এই ঘটনায় জি ডি বিড়লা স্কুলের ম্যানেজমেন্ট অশোকা স্কুল অফ গ্রুপসের মালিক মঞ্জুশ্রী খৈতানের কাছেও জবাবদিহি চেয়েছেন বিক্ষুব্ধ অভিভাবকরা । পাশপাশি জানিয়েছেন, কোনওভাবেই নোটিশ দিয়ে স্কুল বন্ধের সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন না তাঁরা ।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জিডি বিড়লা কাণ্ড: জেরার মুখে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ধৃতরা

কলকাতা: কারা তার উপরে যৌন নির্যাতন চালিয়েছিল, পুলিশকে ছবি দেখিয়ে চিনিয়ে দিয়েছিল চার বছরের শিশুটি ...