Home » উত্তর-পূর্ব ভারত » ত্রিপুরায় আরএসএস-এর জমায়েত ঘিরে চর্চা তুঙ্গে

ত্রিপুরায় আরএসএস-এর জমায়েত ঘিরে চর্চা তুঙ্গে

আগরতলা: রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের সুশৃঙ্খল জমায়েতের ধরণ দেখে রীতিমতো হতবাক রাজ্যের রাজনৈতিক মহল। শুধু তা-ই নয়, অনুষ্ঠান শেষে ময়দান সাফাই করেও তাক লাগিয়ে দিয়েছেন স্বয়ংসেবকরা।

রবিবার বিকালে আয়োজিত হিন্দু জমায়েতের ধরণ দেখে আগরতলার জনসাধারণ, বিশেষ করে রাজনৈতিক মহল রীতিমতো হতচকিত হয়ে গেছে। কারণ যে রাজনৈতিক দলগুলো নিয়মিতভাবে সভা-সমিতি এবং জমায়েত সংগঠিত করে তাদের কারোর পক্ষেই শৃঙ্খলা বজায় রাখা সম্ভব হয়ে উঠে না। ফলে নানা অঘটনও ঘটে থাকে।
কিন্তু আরএসএস এক্ষেত্রে রাজ্যে অভূতপূর্ব নজির সৃষ্টি করেছ বলে মনে করছেন অনেকে। এত বিশালসংখ্যক উপস্থিতি সত্ত্বেও ময়দানে সারিবদ্ধ হয়ে বসা, অনুষ্ঠান শেষ হওয়া না পর্যন্ত আসন ত্যাগ না করা এবং সর্বোপরি, নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করা সবই অভূতপূর্ব বলে মনে হয়েছে সাধারণ নাগরিকদেরও। আবার রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা যানবাহনগুলো সঠিক ভাবে পরিচালনার জন্য ট্রাফিক পুলিশকে সহায়তা করেছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত স্বয়ংসেবকরা। এতে অভিভূত পুলিশের সাধারণ কর্মী থেকে আধিকারিকরাও।

অন্যদিকে, এই জমায়েতে দর্শক-শ্রোতাকে টানতে কোনও ধরনের ব্যানার পোস্টার মিছিল কিংবা অন্য কোনও ধরনের প্রচারাভিযানও চালানো হয়নি। কোনও ধরনের সরব প্রচার ছাড়া শুধু সাংগঠনিক ভিত্তিতে এ ধরনের জমায়েত করা অসম্ভব বলে মনে করে রাজ্যের রাজনৈতিক মহল।
সংঘের প্রান্ত প্রচারপ্রমুখ মনোরঞ্জন প্রধান জানিয়েছেন, মোহনজির আগমন নিয়ে সারা রাজ্যে ৩,২০০ বৈঠক সংগঠিত করা হয়েছে। আর প্রমাণিত হয়েছে, সংঘের গ্রহণযোগ্যতা বেড়েছে। উপস্থিতি ছিল আশানুরূপ।

শুধু তা-ই নয় কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর কর্তৃপক্ষের কাছে ময়দানকে হস্তান্তরের আগে স্বয়ংসেবকরাই তা সাফাই করে দেন। স্বয়ংসেবকরা পুরো ময়দান সাফাই করে দিয়ে শহরবাসী এবং প্রশাসনের সামনে এক অভূত নজর গড়লেন। রাজ্যের বিভিন্ন মহলে সোমবারও এই জমায়েত নিয়ে চর্চা চলছে।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ত্ৰিপুরায় অমিত শাহর জনসমাবেশ সফল করার প্ৰস্তুতি বিজেপি-র

আগরতলা: আগামী ৭ জানুয়ারি ত্ৰিপুরার আমবাসা ও উদয়পুরে বিজেপি-র সৰ্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর নিৰ্বাচনী জনসমাবেশকে ...