Home » উত্তর-পূর্ব ভারত » ভারতীয় সংস্কৃতির বলেই নারীশক্তিকে জাগ্রত করতে হবে : রাষ্ট্র সেবিকা সমিতি

ভারতীয় সংস্কৃতির বলেই নারীশক্তিকে জাগ্রত করতে হবে : রাষ্ট্র সেবিকা সমিতি

গুয়াহাটি: ভারতীয় সংস্কৃতির বলেই নারীশক্তিকে জাগ্রত করতে হবে। তবেই বিশ্বসভায় শ্রেষ্ঠত্ব লাভ করবে ভারত। আজ রবিবার স্থানীয় বিবেকানন্দ কেন্দ্রে রাষ্ট্র সেবিকা সমিতি আয়োজিত নাগরিক সভায় বক্তব্য পেশ করেছিলেন সংগঠনের অখিল ভারত প্রমুখ কার্যবাহিকা অন্নদানম সীতা গায়ত্রী। সমিতির উত্তর অসম প্রান্ত সঞ্চালিকা ডঃ মালতি বরুয়ার পৌরোহিত্যে অনুষ্ঠিত নাগরিক সভায় সমাজ তথা রাষ্ট্রের কল্যাণে কী করে নারীকে নিয়োজিত করা যায় তার বিশ্লেষণ করেছেন গায়ত্রী।

বলেন, নারী আমাদের সংস্কৃতির ধারক, বাহক ও রক্ষক। তাই আমাদের সংস্কৃতিকে সুরক্ষিত রাখতে হলে নারীশক্তিকে জাগ্রত হতে হবে। নারী যদি সংগঠিত ও সামর্থবান না হয় তা হলে সমাজের অধঃপতন নিশ্চিত। মাতৃত্বের ব্যাখ্যা করে নারীসমাজকে জাগ্রত করতে নারীকেই অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে বলে আহ্বান জানান সমিতির সর্বভারতীয় প্রমুখ কার্যবাহিকা। বলেন, নারী তথা মাতৃজাতি সম্পর্কে পূর্বপুরুষ প্রদত্ত পরম্পরাকে রক্ষা করার গুরুদায়িত্ব আমাদের মাতৃ জাতিকেই নিতে হবে। ভারতীয় সংস্কৃতির মাধ্যমে সমাজে নারীদের বিশেষ অবদান রাখা একান্ত দায়িত্ব ও কর্তব্য। নারী ও পুরুষের বৈবাহিক সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি পৌরাণিক ও সাম্প্রতিকালের বহু কাহিনি অবলম্বনে দৃষ্টান্ত তুলে ধরেছেন।
তাছাড়া, ইতিহাস থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে ভারতবর্ষের ত্যাগ ও সমর্পণ তথা সুস্থ সংস্কৃতির বহু তথ্যও তুলে ধরেছেন গায়ত্রী। বলেন, প্রথমে বুঝতে হবে আমাদের সংস্কৃতি কী। বুঝতে হবে নারীর ভূমিকা। সমস্ত বিষয়ে অবগত হলেই যাবতীয় দ্বিধা-দ্বন্দ্ব কেটে যাবে। এক কথায়, সমাজের দায়িত্ব নিতে হবে। সমাজের প্রতি নারীর কর্তব্য অপরিসীম। নিজের নিজের পরিবারকে সংস্কারিত করে নিলে নারীবাদ কিংবা নারী অধিকারের প্রশ্নই উঠবে না । নারীবাদ, নারী অধিকারের বহু ঊর্ধ্বে নারীর দায়িত্ব ও কর্তব্য। এই দুই বিষয়কে হৃদয়ঙ্গম করতে পারলে এমনিতেই সমাজ সুসংগঠিত হয়ে যাবে। ব্যক্তি, দৃষ্টি, সমষ্টি — এই তিনটি বিষয়কে সাইক্লিক অর্ডারে আমাদের জীবনে প্রোথিত করতে হবে।

প্রসঙ্গত, দুদিনের কার্যকর্ত্রী বর্গের শেষে আজ রবিবার স্থানীয় বিবেকানন্দ কেন্দ্রে নাগরিক সভার আয়োজন করেছিল রাষ্ট্রসেবিকা সমিতি। প্রেক্ষাগৃহ ঠাসা নাগরিকদের সামনে বক্তব্য পেশ করেছেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি সাহিত্যিক-লেখিকা শকুন্তলা ভট্টাচার্য। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন রাষ্ট্র সেবিকা সমিতির গুয়াহাটি মহানগর বৌদ্ধিক প্রমুখ সুদেষ্ণা কাশ্যপ. কল্যাণমন্ত্র পাঠ করেছেন মহানগর শারীরিক প্রমুখ মীনাক্ষী খানাল। সভার শুরুতে স্বাগত সংগীত পরিবেশন করেছেন নবনীতা শর্মা।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ত্ৰিপুরায় অমিত শাহর জনসমাবেশ সফল করার প্ৰস্তুতি বিজেপি-র

আগরতলা: আগামী ৭ জানুয়ারি ত্ৰিপুরার আমবাসা ও উদয়পুরে বিজেপি-র সৰ্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর নিৰ্বাচনী জনসমাবেশকে ...