Home » উত্তর-পূর্ব ভারত » হিন্দু বাংলাদেশিদের নাগরিকত্ব প্রশ্নে বিজেপি-র অবস্থানে বদল হয়নি: রাজেন

হিন্দু বাংলাদেশিদের নাগরিকত্ব প্রশ্নে বিজেপি-র অবস্থানে বদল হয়নি: রাজেন

গুয়াহাটি: জোট ছাড়বে, না-থাকবে তা তাদের নিজস্ব সিদ্ধান্ত। হিন্দু বাংলাদেশিদের নাগরিকত্ব প্রশ্নে বিজেপি-র অবস্থান এতটুকুও বদল হয়নি কিংবা হবেও না। দৃঢ়তার সঙ্গে দলের অবস্থান ফের স্পষ্ট করেছেন রেল প্রতিমন্ত্রী তথা নগাঁওয়ের সাংসদ রাজেন গোহাঁই। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হলে জোট ছাড়ার হুমকি দিয়েছে অসম সরকারের অন্যতম শরিক অসম গণ পরিষদ (অগপ)। এই বিল আইনে পরিণত করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলেছেন প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তথা তদনীন্তন ছাত্রনেতা, অসম আন্দোলনের অন্যতম হোতা এবং অগপ-র প্রতিষ্ঠাতা-সভাপতি প্ৰফুল্লকুমার মহন্ত। এই বিল পাশ হলে বিজেপি-র সঙ্গ ছাড়তে অগপ বাধ্য হবে বলে গতকাল সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী মহন্ত। তিনি বলেছিলেন, অসম চুক্তি লঙ্ঘন হলে সঙ্গে-সঙ্গে জোট ছাড়বে অগপ। তাছাড়া অগপ-র এক বিধায়ক পবীন্দ্র ডেকা ও রমেন কলিতাও অনুরূপ হুমকি দিয়ে বলেছেন, অসমিয়াদের ব্রহ্মতালুতে ছোঁবল মেরেছে বিজেপি। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে অসম চুক্তির এতটুকু লঙ্ঘন হলে রাজ্যকে ফের দ্বিতীয় অসম আন্দোলনের মুখোমুখি হতে হবে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজেন গোহাঁইয়ের মতামত জানতে চাওয়া হয়েছিল। হিন্দুস্থান সমাচার-এর সঙ্গে টেলিফোনিক বার্তালাপে দলের বরিষ্ঠ নেতা তথা সাংসদ বলেন, বিজেপি-র অবস্থান মোটেও পরিবর্তন হয়নি। দলের জন্মলগ্ন থেকে যে স্থিতি ছিল আজও তা-ই রয়েছে।
অতএব সংশোধনী বিলটি সংসদে পাশ হয়ে গেলে জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত যদি অগপ নিয়েই থাকে তাতে তাঁর বা বিজেপি-র বলার কিছুই নেই। সেটা তাঁদের ঘরোয়া বিষয়। একান্তই নিজস্ব, এজন্য বিজেপি-র পক্ষ থেকে তাঁদের তোষামোদ করার প্রশ্নই উঠে না। তাছাড়া অগপ-র এই হুমকি বা সিদ্ধান্তকে ‘দ্বিচারিতা’ বলেও মনে করেন রাজেন। বলেন, জোটে আসার আগে থেকেই বিজেপি-র অবস্থান সম্পর্কে অবহিত ছিল অগপ। বিজেপি-র নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিল, দল ক্ষমতায় আসলে হিন্দুরা, তাঁরা বাংলাদেশিই হোন কিংবা অন্য দেশের, ধর্মের নামে নির্যাতিতদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। এত-সব জেনেও কেন তাঁরা বিজেপি-র সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছিল সে প্রশ্ন অবশ্যই তোলা যেতে পারে।

সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ীই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে বাস্তবে রূপ দিতে চাইছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার। তবে এই আইনের বলে অসম বা অসমিয়াদের যে কোনও ক্ষতি হবে না তা-ও দৃঢ়তার সঙ্গে বলেছেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা রাজেনবাবু। তাছাড়া আরও বলেন, অসমে বাঙালিরা অসমিয়া সংস্কৃতির সঙ্গে যে বিলীন হয়ে গেছেন এই সত্যকে অস্বীকার করার কোনও অবকাশ নেই। অধিকাংশ হিন্দু বাঙালি শংকর সংঘের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে মিশে গিয়ে তাঁদের নাম পদবী পরিববর্তন করেছে, যে দৃষ্টান্ত একজন বাংলাদেশি মুসলমানের ক্ষেত্রে খোঁজে পাওয়া যাবে না।
অন্য এক জিজ্ঞাসার জবাবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজেন বলেন, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা অগপ-র ফাউন্ডার সভাপতি প্রফুল্ল মহন্তের ঐতিহাসিক ভুলের মাশুল গুণছেন অসমিয়ারা। তাঁর জন্যই অস্তিত্ব সংকটে পড়েছেন অসমিয়ারা। বলেন, ১৯৬১ সালকে অসম চুক্তির ভিত্তিবর্ষ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রফুল্ল মহন্তের নেতৃত্বাধীন অসম আন্দোলনের পদাধিকারীরা সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে ১৯৭১ সালকে ভিত্তিবর্ষ হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন। যা ছিল ‘হিমালয়ান ব্লান্ডার’। অতএব গোটা বিষয়টি সুস্থ মস্তিষ্কে উপলব্ধি করা দরকার অগপ বা তাদের সমমনোভাবাপন্ন দল ও সংগঠনের।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ত্ৰিপুরায় অমিত শাহর জনসমাবেশ সফল করার প্ৰস্তুতি বিজেপি-র

আগরতলা: আগামী ৭ জানুয়ারি ত্ৰিপুরার আমবাসা ও উদয়পুরে বিজেপি-র সৰ্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহর নিৰ্বাচনী জনসমাবেশকে ...