Home » সংবাদ শিরোনাম » প্রজাতন্ত্র দিবসের ট্যাবলো নিয়ে অহেতুক রাজনীতি করছেন মমতা : অর্জুন

প্রজাতন্ত্র দিবসের ট্যাবলো নিয়ে অহেতুক রাজনীতি করছেন মমতা : অর্জুন

কলকাতা: প্রজাতন্ত্র দিবসের ট্যাবলো নিয়ে অহেতুক রাজনীতি করছেন মমতা বন্দ্যোপাধায়। সোমবার কলকাতায় এই মন্তব্য করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘয়াল। মমতা বন্দ্যোপাধায়ের অভিযোগ, ছব্বিশে জানুয়ারি দিল্লির রাজপথের প্যারেডে গতবছর পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কন্যাশ্রী ট্যাবলো বাতিল করে কেন্দ্রীয় সরকার। এ বছরও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের করা ট্যাবলোকে অনুমোদন দেয় নি কেন্দ্রীয় সরকার। এরই পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্য বি জে পি-র সদর দফতরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে অর্জুন রাম মেঘয়াল জানান, দিল্লির ওই প্যারেডে কে বা কারা অংশ নেবে,তা ঠিক করার জন্য একটি কমিটি আছে। কমিটি যদি রাজি না হয় তাহলে আমরা কি করব ? এতে কেন্দ্রীয় সরকারের কোনও ভূমিকা নেই। এসব নিয়ে আমরা রাজনীতি করি না। ভেদাভেদ রাখি না।বরং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অহেতুক রাজনীতি করছেন।

তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধায় বলছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা’র মত বিভিন্ন কেন্দ্রীয় প্রকল্পের টাকা কেন্দ্রীয় সরকার দিচ্ছে না। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানান,এই নিয়ে মনমোহন সিং সরকারের আমলে তৎকালীন মধ্য প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানকে চেয়ারম্যান করে একটি কমিটি হয়েছিল। যার সদস্য ছিলেন সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। বিভিন্ন কেন্দ্রীয় প্রকল্পে ষাট শতাংশ টাকা দেবে কেন্দ্র।বাকি চল্লিশ শতাংশ টাকা দেবে রাজ্য।।ইউটিলাইজেশন সার্টিফিকেট দিলেই কেন্দ্রের টাকা পাওয়া যাবে। কিন্তু উনি ইউটিলাইজেশন সার্টিফিকেট না দিলে টাকা পাবেন কোথা থেকে ।

আজ সোমবার ছিল প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর জন্মদিন। এই দিনটিকে বি জে পি ‘গুড গভর্নেন্স’ দিবস হিসেবে পালন করেন। সেই উপলক্ষে এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন রাম মেঘয়াল কলকাতায় এসেছিলেন। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর সময় করা কিছু কেন্দ্রীয় প্রকল্প গুড গভর্নেন্সের উদাহরণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। যেমন প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনা। গ্রাম পঞ্চায়েত গুলোর সঙ্গে হাইওয়ে গুলোকে জুড়ে দেওয়া হয়েছে। উনি ভারতকে একটি নেটওয়ার্কে জুড়ে দিয়েছেন। গ্রাম যখন হাইওয়েতে জুড়বে তখন গ্রামের দুধ বিক্রির জন্য শহরে চলে যাবে। আবার শহরের অ্যাম্বুলেন্স খুব সহজেই গ্রামে চলে আসবে। একেই গুড গভর্নেন্স বলে। সর্বশিক্ষা অভিযান সার্থক হয়েছে অটলজীর পরিকল্পনার জন্য। কোনও হাসপাতালে যখন পরিকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে, যেমন ভালো অপারেশন থিয়েটার। তার জন্য টাকা আসে অটলজীর পরিকল্পনা মত ‘ ন্যাশনাল হেল্থ মিশন’ থেকে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন,ব্যাঙ্ক গুলি কৃষকদের ঋণ দিতে চাইত না। অটলজী বলেছিলেন, দেশের উদ্যোগপতিরা যদি ক্রেডিটকার্ড রাখতে পারে, তাহলে দেশের কৃষকরাও ক্রেডিটকার্ড রাখতে পারবে। তাই ভারতীয় জনতা পার্টি অটলবিহারী বাজপেয়ীর জন্মদিনের দিনটিকে ‘গুড গভর্নেন্স ‘ দিবস হিসেবে পালন করে।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

তিন তালাক বিরোধী বিল নিয়ে সরব মমতা বন্দোপাধ্যায়

আমোদপুর: নরেন্দ্র মোদী সরকারের বিরুদ্ধে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাকযুদ্ধ অব্যাহত| বিমুদ্রাকরণকে হাতিয়ার করে এতদিন তুলোধনা ...