বিজেপির পথসভা ভঙ্গের অভিযোগ উঠল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে

শিলিগুড়ি: রবিবার সন্ধে ছটা থেকে নটা পর্যন্ত এনজিপি ৩৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাল্মিকী মাঠে একটি পথসভা করার কথা ছিল বিজেপি ৬ নম্বর মণ্ডল কমিটির। কিন্তু সেই সভা ভঙ্গের অভিযোগ উঠে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে।

বিজেপি ৬ নম্বর মণ্ডল কমিটির অভিযোগ রবিবার সন্ধ্যা ৬ টায় এনজিপি বাল্মিকী মাঠে এক পথসভা করার কথা ছিল বিজেপি ৬ নম্বর মণ্ডল কমিটির। কিন্তু সেখানে গিয়ে সভা শুরু করলেই তৃণমূলের লোকজন এসে সেই সভা ভঙ্গ করে। এবং তাদের ব্যানার মাইকের তার সবকিছু ছিড়ে দেয়। সঙ্গে সঙ্গে তারা নিউ জলপাইগুড়ি থানায় অভিযোগ জানালে পুলিশ কোনওরকম পদক্ষেপ গ্রহণ করে না বলে অভিযোগ তোলেন তারা। এবং তারই পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার সকালে উত্তরবঙ্গের বিজেপি কনভেনার রথীন্দ্রনাথ বসুর নেতৃত্বে বিজেপি ৬ নম্বর মণ্ডল কমিটির সদস্যবৃন্দ এনজিপি থানা চত্বরে অবস্থান-বিক্ষোভে বসে অবিলম্বে নিউ জলপাইগুড়ি থানার ওসি অরিন্দম ব্যানার্জীর বদলির দাবিতে।

উত্তরবঙ্গের বিজেপি কনভেনার রথীন্দ্রনাথ বসু জানিয়েছেন, যেদিন থেকে ইলেকশন ডিক্লেয়ার হয়েছে সেদিন থেকেই বিজেপির পিছনে পড়ে রয়েছে তৃণমূল। বিভিন্ন জায়গায় সভা ভঙ্গ, পোস্টার-ব্যানার ছেড়া করে চলছে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা সমর্থকের। এবং গতকালও ঠিক একই ঘটনা ঘটেছে এনজিপি বাল্মিকী ময়দানে। কিন্তু সব থেকে আশ্চর্যের বিষয় যখন আমরা এনজিপি থানায় এর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাই তখন পুলিশ কোনওরকম পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি এর বিরুদ্ধে। আমরা জানি এই পুলিশ প্রশাসন তৃণমূলের হয়ে কাজ করে।  এবং যদি এনজিপি থানার ওসি অরিন্দম ব্যানার্জি লোকসভা ভোটে এই থানার ওসি থাকে তাহলে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট করাও সম্ভব হবে না। তাই আমরা অরিন্দম ব্যানার্জীর বদলির দাবি করছি। এবং নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুরোধ করছি যেন প্রত্যেকটি বুথে সেন্ট্রাল ফোর্স দিয়ে ইলেকশন কভার করা হয়।  তা নাহলে এনজিপিতেও ছাপ্পা ভোটের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে তৃণমূলের বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকার জানিয়েছেন- তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা ও সমর্থকদের কাছে এতটা সময় নেই যে তারা বিজেপির মতো একটি সাম্প্রদায়িক দলের সভা ভঙ্গ করতে যাবে। লোকসভা ভোটে এসে পড়েছে।  তৃণমূলের নিজেদের দলকে জেতানোর জন্য প্রচুর কাজ রয়েছে। তাই তারা সেগুলোই করছে। এইসব অভিযোগ পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছে রঞ্জন সরকার।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *