ভোটের প্রস্তুতি সম্পর্কে খোঁজখবর নিলেন নির্বাচনী পর্যবেক্ষক সুনীল কুমার যাদব

লোকসভা ভোট যত এগিয়ে আসছে, নিরাপত্তা ব্যবস্থা ততই জোরদার করছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে যাতে কোনও রকম অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে তার জন্য বিভিন্ন এলাকার ভোট কেন্দ্রগুলিতে পর্যবেক্ষণে যাচ্ছেন নির্বাচনের জন্য নিয়োজিত সাধারণ পর্যবেক্ষক সুনীল কুমার যাদব। বিভিন্ন এলাকায় রুটিন পর্যবেক্ষণে গিয়ে তিনি এলাকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখছেন তিনি। সেরমকই গত কাছাড় জেলার বেশ কয়েকটি ভোট কেন্দ্ৰে রুটিন পরিদর্শনে যান তিনি। প্ৰত্যন্ত গ্ৰামেরও কয়েকটি ভোট কেন্দ্ৰ ঘুরে দেখেন তিনি।কাটিগড়া কেন্দ্ৰের ওই ভোট কেন্দ্ৰগুলির নির্বাচনি প্ৰস্তুতি সম্পর্কে জানতে চান তিনি। রুটিন পর্যবেক্ষণের সময় ম্যাজিস্ট্ৰেট জিতেন টাইড এবং পুলিশ কর্তারাও তাঁর সঙ্গে ছিলেন। পাশাপাশি ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত ঘেঁষা হরিটিকার এলপি স্কুলের ভোট কেন্দ্ৰটিও পরিদর্শন করেন তিনি। এই ভোটকেন্দ্ৰে কী কী সু্যোগ সুবিধার ব্যবস্থা করা হয়েছে সেই বিষয়েও খবর নেন তিনি। বিএসএফ কর্মকর্তাদের নিয়ে  তুকার গ্ৰাম এলপি স্কুল পরিদর্শনে যান। এরপর তিনি  ১৬ নং জগদীশ এলপি স্কুলে, কালাইন এইচএস স্কুল, মালিডহর এলপি স্কুলে পরিদর্শনে যান। সেখানে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথাও বলেন।

সেরকমই রুটিন পরিদর্শনের জন্য তিনি নতুন বাজার এলাকার গান্ধী সিনিয়র বেসিক স্কুল পরিদর্শনে যান। এই সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন ম্যাজিস্ট্ৰেট দীপময় ঠাকুরিয়া ,ধলাইর অফিসার ইনচার্জ ভার্গব বরবরা। এই এলাকায় স্থানীয় বিএলও না থাকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি। ধলাই পুলিশ ফাঁড়ির নির্বাচনি প্ৰস্তুতিও খতিয়ে দেখেছেন তিনি।

নির্বাচনে সমস্ত রকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতেই তিনি রুটিন পর্যবেক্ষণ সারছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। শুধু ভোট কেন্দ্র পরিদর্শনই নয়, ধলাই যাওয়ার পথে তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বেশ কিছু পোস্টার, ব্যানার দেখতে পান। কে বা কারা এই ধরনের ব্যানার, পোস্টার ঝুলিয়েছে সেই বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তিনি এমসিসি কর্মকর্তা এবং পুলিশকে নির্দেশ দেন। এই সব ব্যানার, পোস্টার যারা ঝুলিয়েছে তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আগাম অনুমতি নিয়েছে কিনা তার তদন্তও করতে বলেন সুনীল কুমার যাদব। যদি অনুমতি না নিয়ে থাকে তাহলে আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্ৰহণেরও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সুতরাং একটা বিষয় স্পষ্ট যে নির্বাচন ঘিরে যাতে ভোট কেন্দ্র গুলিতে কোনও রকম উত্তেজনা না ছড়ায় এবং ভোটদাতারা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারেন তার জন্য তিনি আগে থেকেই সতর্কতা অবলম্বন করছেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *