আত্মপক্ষ সমর্থন চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ রাজীব কুমার

শনিবার সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা জমা দিলেন রাজীব কুমার। সারদা মামলায় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কাজ করছে সিবিআই। শিলংয়ে জেরা চলাকালীন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের সবরকমের সহযোগিতা করেছিলেন। জিজ্ঞাসাবাদের সময় যে ভিডিও রেকর্ডিং হয়েছে সেটা দেখলেই আদালত সব বুঝতে পারবে। সূত্রের খবর, এই মর্মেই হলফনামা জমা দিয়েছেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার। পাশাপাশি হলফনামায় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার পদক্ষেপ নিয়েও প্রশ্নও তুলেছেন তিনি। হলফনামার প্রতিলিপি পাঠানো হয়েছে সিবিআইকেও।

উল্লেখ্য, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে, শিলংয়ে সিবিআইয়ের মুখোমুখি হয়েছিলেন কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। এরপরই সারদা-কাণ্ডের তদন্তে তিনি সহযোগিতা করেননি, তাই তাঁকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি। সেই ভেবে শীর্ষ আদালতে হলফনামা দিয়ে দাবি করে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। গ্রেফতারির বিরুদ্ধে আত্মপক্ষ সমর্থনে আজ সুপ্রিম কোর্টে পালটা হলফনামা জমা দিলেন রাজীব কুমার। সূত্রের খবর, সেখানে পালটা প্রশ্ন তোলা হয়েছে, শিলংয়ে পরপর ৫ দিন, ৪০ ঘণ্টা ধরে সিবিআইয়ের সঙ্গে সহযোগিতায় সব প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পরও আবার হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন কোথায়? শিলঙে সিবিআইয়ের সঙ্গে কথা বলার সময়, রাজীব কুমার নিজেই ভিডিও রেকর্ডিং করার কথা বলেন। সেই ভিডিও সিবিআই জমা দিলেই, আদালত বুঝতে পারবে, তিনি যে কোনও প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যাননি ভিডিওতে সেটা স্পষ্টই বোঝা যাবে।

পাশাপাশি রাজীব কুমারের আরও প্রশ্ন, তথ্যপ্রমাণ নষ্ট করা হয়েছে বলে মনে করলে সিবিআই কেন আগেই নিম্ন আদালতে যায়নি। তাঁর দাবি আদালতে সিবিআইয়ের হলফনামার বয়ান বারবার পালটে যাওয়াই প্রমাণ করছে নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যে কাজ করছে গোয়েন্দা সংস্থা। সূত্রের খবর, সিবিআই যে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে কাজ করছে, তা বোঝাতে মুকুল রায় ও কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ফোনে কথাবার্তার রেকর্ডিং ফাঁস হয়ে যাওয়ার কথাও হলফনামায় বলেছেন রাজীব কুমার। সেই রেকর্ডিংয়ে ৪ আইপিএস অফিসারকে সরানোর কথা বলা হয়।  মামলার পরবর্তী শুনানি সোমবার ১৫ এপ্রিল। এখন দেখার ১৫ এপ্রিলের মামলায় আদালত কী রায় দেয়।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *